চলচ্চিত্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চেয়ে আর কেউ বেশি উন্নয়ন করেনি: ডিপজল

চলচ্চিত্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চেয়ে আর কেউ বেশি উন্নয়ন করেনি: ডিপজল

মে ২৫, ২০২১ 0 By বিনোদন২৪.কম

চলচ্চিত্রের উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবচেয়ে বেশি সহযোগিতা করেছেন। বঙ্গবন্ধুর গড়া চলচ্চিত্র শিল্পের উন্নয়নে তিনিই এগিয়ে এসেছেন। তাঁর মতো এমন উন্নয়ন আর কেউ করেনি।

কথাগুলো বলেছেন, চলচ্চিত্রের মুভিলর্ড খ্যাত মনোয়ার হোসেন ডিপজল।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একজন শিল্প মনস্ক ব্যক্তিত্ব। চলচ্চিত্রের প্রতি তার বিশেষ আগ্রহ রয়েছে। ফলে এর আধুনিকায়নে তিনি নানা উদ্যোগ নিয়েছেন। জেলায় জেলায় আধুনিক সিনেপ্লেক্স নির্মাণ, ঋণ প্রদানের সুবিধাসহ এফডিসির প্রযুক্তিগত উন্নয়নে সহযোগিতা প্রদানসহ বিভিন্ন প্রণোদনা সুবিধা প্রদান চলচ্চিত্রের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর ভালবাসা প্রকাশিত হয়েছে। আমরা আশা করি, এসব সুযোগ-সুবিধার ফল চলচ্চিত্র দ্রুত পাবে। এদিকে, ডিপজল তার ঘোষিত প্রতি মাসে একটি সিনেমা নির্মাণের যে ঘোষণা দিয়েছেন, তা অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ইতোমধ্যে প্রতি মাসের মাঝামাঝি একটি করে সিনেমা নির্মাণ করেছি। এ মাসে লকডাউনের কারণে প্রস্তুতি থাকা সত্ত্বেও শুরু করতে পারিনি। তবে আগামী মাসের ১৬ তারিখ থেকে ঘোষণা অনুযায়ী আমার সিনেমা নির্মাণ শুরু হবে। এদিন শুরু করব নতুন সিনেমা ঘর ভাঙ্গা সংসারের শুটিং। এ সিনেমার মূল বক্তব্য হচ্ছে, মানুষের সংসার কেন ভাঙ্গবে? সংসারে দুঃখ-কষ্ট থাকবেই, তার মানে এই নয় সংসার ভেঙ্গে দিতে হবে। এ ম্যাসেজটিই সিনেমাতে দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, আমার প্রতিটি সিনেমায়ই বিনোদনের পাশাপাশি পারিবারিক ও সামাজিক বক্তব্য থাকে, যাতে দর্শক আনন্দের সাথে শিক্ষণীয় কিছু পান। তিনি জানান, এ লটে আরও পাঁচটি সিনেমা নির্মাণ করা হবে। সবগুলোরই পরিচালক মনতাজুর রহমান আকবর। তিনি বলেন, ঈদে মুক্তিপ্রাপ্ত আমরা সৌভাগ্য সিনেমাটি বেশ ভাল চলেছে। দর্শক হলে এসে সিনেমাটি দেখেছে। এতে আমি খুব হ্যাপি। সিনেমাটি দর্শক স্বাস্থ্যবিধি মেনে দেখেছে। আমার কথা হচ্ছে, দর্শককে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সিনেমা হলে এসে সিনেমা দেখতে হবে। ঘরে বসে থাকলে চলবে না। দর্শকদের ধন্যবাদ দিতে চাই যে, তারা আমার সৌভাগ্য সিনেমাটি হলে এসে দেখেছেন। সিনেমাটি দেখার কারণ হচ্ছে, আমি তাদের মনের মতো গল্পের সিনেমা দিতে পেরেছি।

ডিপজল বলেন, আমার সিনেমা নির্মাণ করাই হয় দর্শকের চাহিদার কথা মাথায় রেখে। ইতোমধ্যে নতুন যে সিনেমাগুলো নির্মাণ করেছি, সবগুলোই দর্শকের মনের মতো করে নির্মাণ করা হয়েছে। প্রত্যেকটি সিনেমা এ সময়ের গল্পের। আমাদের পারিবারিক ও সামাজিক প্রেক্ষাপটের গল্প। আমি বরাবরই বলে আসছি, দর্শকের চাহিদা অনুযায়ী সিনেমা দিতে পারলে তা তারা ফিরিয়ে দেয় না। তারা দেখে। তাদের এই চাহিদা নিয়েই নতুন সিনেমাগুলো নির্মিত হচ্ছে।

উল্লেখ্য, ইতোমধ্যে ডিপজলের নতুন সিনেমা মানুষ হলো অমানুষ, বাংলার হারকিউলিস, যেমন জামাই তেমন বউ-এর কাজ শেষ হয়েছে। এগুলো পর্যায়ক্রমে মুক্তি দেয়া হবে।