শুভ জন্মদিন শাকিব খান

শুভ জন্মদিন শাকিব খান

মার্চ ২৮, ২০২১ 0 By বিনোদন২৪.কম

এক যুগেরও বেশি সময় ধরে সাফল্যের সঙ্গে বসে আছেন ঢাকাই সিনেমার নায়কদের সিংহাসনে। বছরের ব্যবসা সফলের দিকে সব সময় এগিয়ে তার অভিনীত সিনেমা। যার সিনেমা মুক্তি পেলেই দর্শকদের লাইন পড়ে যায় টিকিটের জন্য।

একটি ইন্ড্রাস্টির পরিচালক-প্রযোজকদের ভরসার কেন্দ্রবিন্দু। লগ্নিকৃত অর্থ ফেরতের নির্ভরযোগ্য নাম। অভিনয়ই যাকে করে তুলেছে সুপারস্টার। ভক্তের কাছে তিনি কিং খান। বলছি চিত্রনায়ক শাকিব খানের কথা।

ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় এই নায়কের আজ (রবিবার) জন্মদিন। ১৯৭৯ সালের ২৮ মার্চ তিনি নারায়ণগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন।

বর্তমানে পাবনায় অবস্থান করছেন শাকিব খান। সেখানে ব্যস্ততার মাঝেই কাটবে তার এবারের জন্মদিন। কারণ সেখানে চলছে তার নতুন সিনেমা ‘অন্তরাত্মা’র শুটিং। এটি নির্মাণ করছেন ওয়াজেদ আলী সুমন। যেখানে শাকিব খানের বিপরীতে অভিনয় করছেন কলকাতার অভিনেত্রী দর্শনা বণিক।

শাকিব খানের প্রকৃত নাম মাসুদ রানা। চলচ্চিত্রে পথচলা শুরু হয় আফতাব খান টুলু পরিচালিত ‘সবাইতো সুখী হতে চায়’ সিনেমার মাধ্যমে। এতে তার বিপরীতে ছিলেন নবাগত কারিশমা শেখ। কিন্তু দর্শক শাকিব খানকে প্রথম দেখেন সোহানুর রহমান সোহান পরিচালিত ১৯৯৯ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘অনন্ত ভালোবাসা’ চলচ্চিত্রে। এই চলচ্চিত্রে তার বিপরীতে ছিলেন চিত্রনায়িকা মৌসুমীর ছোট বোন ইরিন জামান।

এরপর নিয়মিত অভিনয় করতে থাকেন শাকিব খান। তবে শাকিবের উত্থান শুরু ২০০৬ সালের দিকে। তারপর থেকে ঢাকাই ছবির শীর্ষ নায়ক তিনি। অনেক নতুন মুখ আসে আবার হারিয়েও যায়। কিন্তু শাকিব বহাল রয়েছেন নায়কদের রাজত্বের সিংহাসনে।

গত এক যুগে শাকিব খানের বিকল্পও কেউ হতে পারেনি। অভিনয় দিয়ে দর্শকের মন জয় করেই চলেছেন। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বদলাচ্ছেন নিজেকেও। মনোযোগী হচ্ছেন ভালো গল্পের প্রতি।

মৌসুমী-শাবনূর থেকে শুরু করে আজকের নবাগতা কয়েকজন নায়িকার সঙ্গেও সমানতালে অভিনয় করে যাচ্ছেন শাকিব। অভিনয়ের স্বীকৃতি হিসেবে মোট চারবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন শাকিব খান। ২০১২ সালে ‘ভালোবাসলেই ঘর বাঁধা যায় না’, ২০১৪ সালে ‘খোদার পরে মা’, ২০১৬ সালের ‘আরও ভালোবাসবো তোমায়’ ও ২০১৭ সালে ‘সত্তা’ ছবির জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন তিনি।

ব্যক্তি জীবনে শাকিব খান এক পুত্রের জনক। ভালোবেসে ২০০৮ সালে সংসার সাজিয়েছিলেন অপু বিশ্বাসের সঙ্গে। গোপনই ছিল সেই সংসারের খবর। তবে খবরটি প্রকাশ্যে আসার পর দূরত্ব বাড়ে শাকিব-অপুর। শেষ পর্যন্ত ২০১৯ সালে ভেঙে গেছে তাদের দাম্পত্য জীবন।