ভুবন ভোলানো হাসির মোনালিসার জন্মদিন আজ

0
18

ভুবন ভোলানো হাসি দিয়ে জয় করেছিলেন দর্শকদের হৃদয়। ২০০০ সালে মিস ফটোজেনিক খেতাব লাভ করেন তিনি। এরপর ২০০২ এবং ২০০৭ সালে বিজ্ঞাপনে কাজ করার সুবাদে তিনি জাতীয় পর্যায়ে সেরা নারী মডেল। বলছি মোজেজা আশরাফ মোনালিসার কথা। আজ তার জন্মদিন।

১৯৮৪ সালের ৫ অক্টোবর জন্মগ্রহণ করেন তিনি। মোনালিসা একাধারে মডেল ও নৃত্যশিল্পী। শৈশব থেকেই গান শিখতেন। পরে নাটকও করেন। মডেলিং ক্যারিয়ার শুরু হয় মাত্র ১০ বছর বয়সে। পরে র‌্যাম্পেও হেঁটেছেন। পর্দায় প্রথম আসেন ১৯৯৭ সালে। বিজ্ঞাপনটা ছিল ফেয়ার অ্যান্ড লাভলির। নির্দেশনায় ছিলেন তারিক আনাম খান। তবে, সবার নজরে আসেন ২০০০ সালে মিস ফটোজেনিকের পুরস্কার জিতে।

এরপরই তার ঠিকানা হয় বিজ্ঞাপনের জগতে। মেরিল প্রথম আলো পুরস্কার জয়ী ‘লিলি বিউটি সোপ’ তো ছিলই, সঙ্গে ফিজ আপ, জনি প্রিন্ট শাড়ি, তোসিবা টেলিভিশন, মেরিল লেমন সোপ, বাংলালিংক দেশ, গোয়ালিনী ইত্যাদি ছিল বিজ্ঞাপনে মোনালিসার সেরা কাজ। বাংলালিংকের সঙ্গে দীর্ঘ সময় ছিলেন, কাজ করেছিলেন ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে।

অভিনয় জগতে খুব আলোচিত কখনোই হননি। যদিও, তিনি প্রথম সারির সব অভিনেতার সঙ্গেই কম বেশি কাজ করেছেন। ছোট পর্দার জন্য তিনি অ্যাভারেজ আসলাম, সিকান্দার বক্স এখন বিরাট মডেল, বয়স যখন একুশ, কাগজের ফুল, রিভিশন পুত্রদায়, তৃষ্ণা, একটু ভালোবাসা, রোমেরা, টি-শার্ট, শহর ভরা কাঁচের কোকিল, রঙতুলি, প্রেম একটি রাসায়নিক বিক্রিয়া, ফাইভ পয়েন্ট ফাইভ, অন্তর্লোক, বাস নাম্বার, বৃষ্টি এবং তুমি, অ্যারেঞ্জ ম্যারেজ ইত্যাদি নাটকে কাজ করেন।

২০০৭ সালে শেষবারের মতো মডেলিংয়ে মেরিল প্রথম আলো পুরস্কার দেওয়া হয় তাকে। সেবার বাংলালিংক দেশ বিজ্ঞাপনটা করে পুরস্কারটা জিতেছিলেন মোনালিসা।

২০১৩ সালে আমেরিকায় চলে যান মোনালিসা। মাঝে দেশে এসে নাটকে নিয়মিত হলেও ফের পাড়ি জমান আমেরিকায়। সবশেষ দেশে এসেছিলেন দুই বছর আগে। সেসময় কয়েকটি টিভি নাটকেও কাজ করেন। তবে নাটকে অভিনয় আর মডেলিংয়ের জন্য এখন আর আলোচনায় আসেন না মোনালিসা।

ব্যক্তিগত জীবনের দুর্ঘটনা তার সবকিছু উলটপালট করে দিয়েছে। রুপালি পর্দার রুটিন ভেঙ্গে তার জীবন এখন অন্য আট-দশজন কর্মীজীবী নারীর মতোই তার জীবন।

বর্তমানে বিশ্ববিখ্যাত কসমেটিকস ও বিউটি প্রোডাক্ট সরবরাহকারী বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান ‘সেফোরা’র বিউটি অ্যাডভাইজার হিসেবে কর্মরত আছেন তিনি। এর আগে সেখানকার ‘টাইম টেলিভিশন’-এও চাকরি করতেন তিনি। এ নিয়ে তার কোন আক্ষেপ নেই, তবে দেশের মানুষের সঙ্গে থাকতে না পাড়ার দুঃখ আছে।

সবশেষ মোনালিসা কণ্ঠশিল্পী হৃদয় খানে নির্দেশনায় ‘ট্র্যাপড’ নামের স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। এটি পরিচালনার ছাড়াও কাহিনী, সংলাপ, চিত্রনাট্য ও চিত্রগ্রাহকের কাজ করেছেন হৃদয় খান নিজেই। এর শুটিং হয়েছে আমেরিকার বিভিন্ন মনোরম লোকেশনে। ২০ মিনিটের এ চলচ্চিত্রটি হৃদয় খানের নিজের ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশিত হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here