নুহাশ হুমায়ুনের ওয়েব সিরিজ ‘বিচ্ছুজ’

0
25

বৈশ্বিক মহামারিতে সুরক্ষার প্রধানতম উপায় সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার গুরুত্ব নিয়ে তরুণদের মধ্যে সচেতনতা তৈরিতে চলচ্চিত্রনির্মাতা নুহাশ হুমায়ুন এবং শিল্পী ও সুরকার প্রীতম হাসানকে নিয়ে ‘বিচ্ছুজ’ শীর্ষক ওয়েব সিরিজের মাধ্যমে ক্রিয়েটিভ ক্যাম্পেইন নিয়ে এসেছে ওয়াটারএইড। 

সচেতনতায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা, বিশেষ করে, সাবান দিয়ে হাত ধোঁয়ার গুরুত্ব বোঝানো দুরূহ এমন চার বন্ধুকে ঘিরে এ ওয়েব সিরিজের গল্প। এ ওয়েব সিরিজে ‘বন্ধু’ নামের পাপেট চলতি নানা উপায়ের বাইরে গিয়ে এ চার বন্ধুর স্বাস্থ্যবিধি অভ্যাস গড়ে তোলার চেষ্টা করে। এ সিরিজের চারটি চরিত্র রূপায়ণ করেছেন টোকাই থিয়েটারের সদস্যরা এবং ‘বন্ধু’ চরিত্রে কণ্ঠদান করেছেন প্রীতম হাসান। এ পাঁচ চরিত্রের নানা কর্মকাণ্ডের মধ্য দিয়ে সিরিজের গল্প এগিয়েছে যেখানে দর্শক দেখতে পাবেন, এ চরিত্রগুলো কীভাবে হাস্যরস, ব্যঙ্গ ও বিদ্যমান নানা ট্যাবুর মধ্য দিয়ে হাতধোয়ার গুরুত্ব বোঝে।

 ১৯৮৬ সাল থেকে হাত ধোয়ার গুরুত্ব নিয়ে কাজ করার মাধ্যমে এ ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে ওয়াটারএইড। সংস্থাটি শহর ও গ্রামাঞ্চলে জনসাধারণকে বিশুদ্ধ পানি, ব্যবহারযোগ্য টয়লেট এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার অভ্যাস তৈরিতে উৎসাহিত করে আসছে। সংস্থাটির তরুণদের নিয়ে শাখা ‘ইয়ুথ ফর এসডিজি ৬’ গত বছর যাত্রা শুরু করে। এবং বর্তমানে এক হাজারের বেশি শিক্ষার্থী-স্বেচ্ছাসেবীদের নিয়ে তাদের কমিউনিটি ও প্রতিষ্ঠানে সুস্বাস্থ্যবিধির অভ্যাস গড়ে তুলতে কাজ করছে সংস্থাটি।

নুহাশ ও প্রীতম শুধুমাত্র পরিচালক ও সুরকার হিসেবেই ‘বিচ্ছুজ’- এ কাজ করছে না পাশাপাশি, তারা ‘ইয়ুথ ফর এসডিজি ৬’ প্ল্যাটফর্মের উপদেষ্টা পর্ষদ সদস্য হিসেবে কাজ করছে। একসাথে এ সিরিজ নিয়ে কাজ করা ছাড়াও, এ জুটি সবার মধ্যে সবসময় হাতধোয়ার আজীবনের অভ্যাস গড়ে তুলতে ওয়াটারএইডের সচেতনতা কার্যক্রমে সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে।

নুহাশ হুমায়ুন বলেন, তরুণদের মধ্যে কোনো কিছু করার অভ্যাস গড়ে তোলার ক্ষেত্রে তাদেরকে আগে বুঝতে হবে। শুধুমাত্র ঢালাও ভাবে সচেতনতার বার্তা দিয়ে প্রত্যাশা করা যাবে না তারা এটা বিশ্বাস করবে বা নির্দিষ্ট অভ্যাস গড়ে তুলবে। বর্তমানের তরুণরা কী করা উচিৎ, এটা শোনার চেয়ে উপলব্ধির ব্যাপারে বেশি মনোযোগী। আমাদের তাদের ভাষাতেই তাদেরকে বলতে হবে, সেটা হোক শুনতে বিল্পবী, অপ্রচলিত কিংবা অপ্রত্যাশিত। পেশাদারিত্বের জায়গা থেকে নির্মাতা হওয়া ছাড়াও ‘ইয়ুথ ফর এসডিজি ৬’ প্ল্যাটফর্মের উপদেষ্টা হিসেবে থাকার কারণে এ প্রকল্পটি আমাদের হৃদয়ে বিশেষ জায়গা নিয়ে আছে। আমার বিশ্বাস, এ প্রকল্পটি সুস্বাস্থ্যের অভ্যাস গড়ে তোলার ক্ষেত্রে ইতিবাচক পরিবর্তন নিয়ে আসবে যা আমাদের মূল্য উদ্দেশ্য।’

১১ মে প্রথম এপিসোড মুক্তির পর থেকে ওয়াটারএইড বাংলাদেশের অফিশিয়াল ফেসবুক পেজ, ইউটিউব, ইনস্টাগ্রাম ও টুইটারে এ ওয়েব সিরিজ দেখা যাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here