আর দোকানে চা খেতে যাবেন না সেই ‘চা কাকু’

আর দোকানে চা খেতে যাবেন না সেই ‘চা কাকু’

এপ্রিল ১২, ২০২০ 0 By বিনোদন২৪.কম

জনতা কারফিউ-এর দিন থেকেই সকলের মুখে মুখে ঘুরছে ‘চা কাকু’ আর ‘চা খাব না আমরা?’। সোশ্যাল মিডিয়ায় যেন ঝড় বয়ে যাচ্ছে মিমের। কে এই ‘চা কাকু’, না জেনেই অধিকাংশ মানুষ মেতে উঠেছেন তাকে নিয়ে।

কিন্তু এত মিমে কিছুটা সমস্যা হলেও আদতে কিন্তু ‘শাপে বর হয়েছে’ ‘চা কাকু’ ওরফে যাদবপুর অঞ্চলের শ্রীকলোনীর বাসিন্দা মৃদুল দেবের। আর্থিক অভাব-অনটনের সঙ্গে যুঝে চলা এই মানুষটির দিকে সাহায্যের হাত বাড়ানোর জন্য অনেকেই কাতর আর্জি জানিয়েছিলেন। তবে এত মিম ছড়ালেও সেই সোশ্যাল মিডিয়াই কিন্তু মৃদুলবাবুকে এনে দিলেন এক নতুন প্ল্যাটফর্মে। দুস্থ মানুষটির দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন সংশ্লিষ্ট এলাকার সাংসদ মিমি চক্রবর্তী।

ভারতীয় গণমাধ্যমের খবর, শুক্রবার মিমি তার এক প্রতিনিধিকে মৃদুলবাবুর বাড়িতে পাঠিয়েছিলেন। তার দৌলতেই মৃদুলবাবুর সঙ্গে নিজে ভিডিও কল করে কথা বলেন। শুরুতেই জিজ্ঞেস করেন তার শরীর-স্বাস্থ্য নিয়ে। প্রতিনিধির হাত দিয়ে মৃদুলবাবুর পরিবারের জন্য তিনি চাল-ডাল, কিছু অত্যাবশকীয় জিনিস-সহ চা পাতাও পাঠিয়েছেন।

আর সেই সঙ্গে মৃদুলবাবুকে এও বলেছেন যে, এই কদিন এমন পরিস্থিতিতে বাইরে চা খেতে না বেরনোর জন্য। উপরন্তু, লকডাউনের মাঝে তাঁর যদি কোনোরকম অসুবিধে হয়, তা দেখভালের জন্যও মিমি নিজের এক প্রতিনিধির ফোন নম্বর দিয়েছেন মৃদুলবাবুকে। কোনও অসুবিধে হলেই সেই নম্বরে তাঁকে যোগাযোগ করার কথা বলেছেন মিমি। পাশাপাশি লকডাউন উঠলেই মৃদুলবাবুর ছেলের পড়াশোনার যাবতীয় দায়িত্ব নিতে রাজি আছেন, বলেও তাঁকে আশ্বাস দিয়েছেন সাংসদ মিমি।

দিন কয়েক আগেই মৃদুলবাবুর সাংসারিক অভাবের কথা শুনে তার দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলেন স্বয়ং সৌরভ গাঙ্গুলী। এবার মহারাজের পথে হেঁটেই যাদবপুরের সাংসদ মিমি চক্রবর্তীও তার পরিবারের পাশে দাঁড়ালেন।