শাহ আলম সরকার,দালের মেহেন্দীতে মাতলো ফোক ফেস্ট

১৪ নভেম্বর থেকে শুরু হলো তিন দিনব্যাপী ”ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ফোকফেস্ট ২০১৯”। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় রাজধানীর আর্মি স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের নৃত্যশিল্পী সামিনা হোসেন প্রেমা ও তার নৃত্যদল ভাবনার শিল্পীদের নাচের মধ্য দিয়ে শুরু হয় এই আয়োজন।

নাচের পর মঞ্চে লোকসংগীতের পরিবেশনা নিয়ে আসে গানের দল জর্জিয়ার ”শেভেনেবুরেবি”। এরপর রাত ৯টায় শুরু হয় ফোক ফেস্টের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। শুরুতেই বাংলাদেশের সঙ্গীতাঙ্গনের সদ্যপ্রয়াত সঙ্গীতশিল্পী সুবীর নন্দী, বারী সিদ্দিকী, আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল, আইয়ুব বাচ্চুর প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে একটি তথ্যচিত্র দেখানো হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আয়োজক সান ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান অঞ্জন চৌধুরী। এরপর তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ আনুষ্ঠানিকভাবে লোকসঙ্গীত উৎসব উদ্বোধন করেন। এ সময় তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, ”আমি না আসলে জানতেই পারতাম না এত বড় আয়োজন হচ্ছে এখানে। শুরুতেই আয়োজকদের ধন্যবাদ জানাই। যারা সঙ্গীত চর্চা করেন তারা পরিশীলিত মনের মানুষ। যারা সঙ্গীত চর্চা করেন, সংস্কৃতি চর্চা করে তারা কখনো বিপদগামী হয় না।”

এরপর রাত সা‌ড়ে ৯টায় দর্শক‌দের গ‌ান শোনা‌তে শুরু ক‌রেন বাংলা‌দে‌শের লোকসঙ্গী‌তের জন‌প্রিয় শিল্পী শাহ আলম সরকার। ”কী দরকার হিন্দু-মুসলমান”,”বিয়ে করা মানে জ্যান্ত প্রাণে মরা”,”এত যে নিঠুর বন্ধু জানা ছিল না”,”পিরিত যতন পিরিত যতন”,”আমি তো মরে যাব, চলে যাব, রেখে যাব সবই”। ”আ‌মি তো ম‌রে যা‌ব”’- এ গানটির মধ্য দিয়ে নিজের পরিবেশনা শেষ করেন শাহ আলম সরকার।

শাহ আলম সরকারের পর মঞ্চে আসেন প্রথম দিনের শেষ আকর্ষণ দালের মেহেন্দী। ম‌ঞ্চে এসে বল‌লেন ”কে‌মন আ‌ছো বাংলা‌দেশ”। এরপর গান ধর‌লেন। শুরুতেই ”বাহুবলী দ্য বিগিনিং” চলচ্চিত্রের টাইটেল গান ”বাহুবলী” গেয়ে শোনান। এরপর তিনি গেয়ে শোনান ”বলো তানা রারা”, ”হ্যায়ো রাব্বা হ্যায়ো রাব্বা”,”ম্যায় রাব রাব কারদি”, ”সারি দিল দে দি কুড়িয়া”,”ও গোরি নাচেগি”,”গোরি নাল ইশক মিঠা”, ”হোগায়ে তো বাল্লে বাল্লে”সহ তার জনপ্রিয় সব গান। শে‌ষে বাংলা‌দে‌শের গা‌য়িকা রুনা লায়লার প্রশংসা ক‌রে গে‌য়ে শোনান ”দমাদম মাস্ত কালান্দার” গান‌টি। আর এর মধ্য দিয়েই প্রথম দিনের পর্দা নামে ”ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ফোকফেস্ট ২০১৯” এর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here