শেষ শয্যায় শায়িত হলেন শাহনাজ রহমতুল্লাহ

শেষ শয্যায় শায়িত হলেন কিংবদন্তী কণ্ঠশিল্পী শাহনাজ রহমতুল্লাহ। আজ রোববার (২৪ মার্চ) বাদ জোহর বেলা ২টা ৪০ মিনিটের দিকে রাজধানীর বনানীস্থ সম্মিলিত সামরিক বাহিনীর কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে কিংবদন্তী এই শিল্পীকে। এর আগে বাদ জোহর প্রয়াত শাহনাজ রহমতুল্লাহর একমাত্র জানাজা অনুষ্ঠিত হয় বারিধারার ৯ নম্বর রোডের পার্ক মসজিদে। ১৯৫২ সালের ২ জানুয়ারি জন্ম নেওয়া এই কিংবদন্তী এই শিল্পী আজ শনিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে বারিধারায় নিজ বাসায় হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে ইন্তেকাল করেন।

১৯৬৩ সালে কিংবদন্তী এই শিল্পী মাত্র ১১ বছর বয়সে রেডিও এবং চলচ্চিত্রের তার গানের যাত্রা শুরু করেন। আর ১৯৬৪ সালে টিভিতে প্রথম গান করেন তিনি। পাকিস্তানে থাকার সুবাদে করাচি টিভিসহ উর্দু ছবিতেও গান করেছেন।

দীর্ঘ পঞ্চাশ বছরের ক্যারিয়ারে ‘এক নদী রক্ত পেরিয়ে’, ‘জয় বাংলা বাংলার জয়’, ‘একবার যেতে দে না আমার ছোট্ট সোনার গাঁয়’,’একতারা তুই দেশের কথা বলরে এবার বল’,’প্রথম বাংলাদেশ আমার শেষ বাংলাদেশ’,’সাগরের তীর থেকে’,’খোলা জানালা’, ‘পারি না ভুলে যেতে’, ‘ফুলের কানে ভ্রমর এসে’, ‘আমি তো আমার গল্প বলেছি’,’আমায় যদি প্রশ্ন করে’,’যে ছিল দৃষ্টির সীমানায়’ সহ অসংখ্য কালজয়ী গান গেয়েছেন তিনি।

শাহনাজ রহমতুল্লাহ বাংলাদেশ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, একুশে পদক,বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী পুরস্কার,বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতি (বাচসাস) পুরস্কারসহ অসংখ্য পুরস্কার ও সম্মাননা লাভ করেছেন। বিবিসির এক জরিপে সর্বকালের সেরা কুড়িটি বাংলা গানের তালিকায় তাঁর গাওয়া চারটি গান রয়েছে। বছর পাঁচ আগে হঠাৎ গান থেকে বিদায় নেন এই কিংবদন্তী সংগীতশিল্পী। এরপর থেকে মৃত্যুর আগে পর্যন্ত কিছুটা আড়ালেই ছিলেন তিনি। উল্লেখ্য,প্রখ্যাত সংগীত পরিচালক সুরকার আনোয়ার পারভেজ তাঁর বড় ভাই ও ছোট ভাই চিত্রনায়ক জাফর ইকবাল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here