অর্থ আত্নসাতের অভিযোগ মিথ্যা -বিপাশা

দেশীয় চলচ্চিত্রের অন্যতম আলোচিত চিত্র নায়িকা বিপাশা কবিরের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের এবং চুক্তি ভঙ্গের অভিযোগ করে মামলা করেছেন চলচ্চিত্রকার দেলোয়ার হোসেন। আর দেলোয়ার হোসেনের এই অভিযোগ মিথ্যা বলে বিপাশা বলেছেন তিনি টাকা ফেরত দেয়ার জন্য বেশ কয়েকবার ফোনও দিয়েও অভিযোগকারীকে পাননি। আর এই মামলাটি তাকে হয়রানি করার জন্যই করা হয়েছে।

জানা গেছে দেলোয়ার হোসেন লিখিতভাবে মামলায় বলেছেন,তার প্রতিষ্ঠান এমএম ইন্টারন্যাশনালের ব্যানারে ‘র‌্যাব ভার্সেস টপ টেরর’ ও ‘লেডি টারজান’ শিরোনামের দু’টি ছবিতে অভিনয়ের জন্য গত ১৭ জানুয়ারি বিপাশা কবির চুক্তিবদ্ধ হন। কিন্তু শুটিং শুরু হওয়ার দু’দিন আগে বিপাশা তার বয়ফ্রেন্ডকে ছবিতে নেয়ার জন্য নির্মাতাকে চাপ দেন। নির্মাতা এই দাবি মেনে না নেয়ায় বিপাশা তার ছবিতে কাজ করা থেকে বিরত থাকেন।এতে ছবিটির কাজ যথাসময়ে শুরু করতে না পারায় নির্মাতা চরম আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েন এবং বিপাশার কাছে অগ্রিম দেয়া অর্থ ফেরত চেয়েও পাননি। ফলে বাধ্য হয়ে নির্মাতা ডি হোসেন ১লা আগস্ট চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের আদালত-৩ এ বিপাশা কবিরকে অভিযুক্ত করে একটি সি.আর মামলা দায়ের করেন,(মামলা নাম্বার ৫১৬/১৮)।

এ বিষয়ে বিপাশা কবিরের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন,’এম এম ইন্টারন্যাশনালের সঙ্গে আমি দুটি ছবিতে অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হই। কিন্তু সহশিল্পীর ব্যাপারে তারা যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তা রাখেননি। আমার সঙ্গে মানানসই এমন কাউকে নেয়ার কথা ছিল। কিন্তু তিনি নায়ক হিসেবে যাকে ঠিক করেন তার সঙ্গে কাজ করতে চাইনি। পরে আমার কাছে নায়কের রেফারেন্স জানতে চাইলে কয়েকজনের নাম বলি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত পরিচালকের কথা-বার্তা ভালো না লাগায় কাজটি আর করিনি। তাছাড়া আমিতো টাকা ফেরত দেবার জন্য তার সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেছি। টাকা আত্মসাতের কোন প্রশ্নই উঠে না। মামলার বিষয়টি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানকে জানিয়েছি। আশা করছি সমিতির মাধ্যমেই এর সমাধান হবে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here