“ফিরোজা বেগম স্বর্ণপদক” পেলেন রুনা লায়লা

0
22

পৃথিবীতে মানুষ তাঁর কৃতকর্মের জন্য অমর হয়ে থাকেন। যুগ যুগান্তর বেঁচে থাকেন মানুষের মনের মণিকোঠায়। অসামান্য অবদানের কারণে হয়ে ওঠেন কালোত্তীর্ণ। ‘ফিরোজা বেগম’ তেমনই এক কালজয়ী সংগীত শিল্পীর নাম; যিনি নজরুল সংগীত সাধনায় জীবন উৎসর্গ করেছেন। নজরুল সংগীতে অসামান্য অবদান তাঁকে করেছে মহান। গভীর উপলদ্ধিবোধ নিয়ে তিনি আজীবন গানের চর্চা করে গিয়েছেন। ধ্যানমগ্ন ছিলেন সূরের মূচ্ছর্ণায়। কঠোর অনুশীলন আর লক্ষ্যে অবিচল থেকে হয়ে উঠেছেন গানের কিংবদন্তী; হয়ে উঠেছেন নজরুল সংগীতের ইতিহাস।

উপমহাদেশের প্রখ্যাত এই কণ্ঠশিল্পীর শিল্পী-সত্তার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ২০১৬ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রবর্তন করে ‘ফিরোজা বেগম স্মৃতি স্বর্ণপদক’ ও পুরস্কার। জুরিবোর্ড প্রতিবছর একজন দেশবরেণ্য শিল্পীকে এই স্বর্ণপদক ও পুরস্কারের জন্য মনোনীত করে। একই সাথে বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগীত বিভাগের সর্বোচ্চ সিজিপিএ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীকে এই পদক প্রদান করা হয়।

বর্ষ পরিক্রমায় গতকাল সোমবার (৩০ জুলাই) ছিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে গঠিত ফিরোজা বেগম মেমোরিয়াল ট্রাস্ট ফান্ড এর তৃতীয় অনুষ্ঠান। দেশের কীর্তিমান শিল্পীদের সম্মান জানাতে ও দেশজ শুদ্ধ সংগীত চর্চার প্রতি নতুন প্রজন্মকে অনুপ্রেরণা দিতে এ প্রয়াস। এবছর ফিরোজা বেগম স্মৃতি স্বর্ণপদক ও পুরস্কার এর মনোনীত হয়েছেন বরেণ্য শিল্পী রুনা লায়লা।

আজকের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আখতারুজ্জামান এর কাছ থেকে শিল্পী রুনা লায়লা ‘ফিরোজা বেগম স্মৃতি স্বর্ণপদক’ ও পুরস্কার গ্রহণ করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগীত বিভাগের বি.এ. সম্মান পরীক্ষায় সর্বোচ্চ সিজিপিএ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে একটি স্বর্ণপদক প্রদান করা হবে।

শিল্পী রুনা লায়লা ‘ফিরোজা বেগম স্মৃতি স্বর্ণপদক ও পুরস্কার’ এর তাকে মনোনীত করায় জুরিবোর্ডকে ধন্যবাদ জানান। তিনি এসিআই ফাউন্ডেশনকে ধন্যবাদ জানান, মর্যাদাপূর্ণ এই পুরস্কার প্রণয়নে পৃষ্ঠপোষকতা করার জন্য।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আখতারুজ্জামান আজকের এই অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসাবে তাঁর বক্তব্য প্রদান করেন। ফিরোজা বেগম মেমোরিয়াল ট্রাস্ট ফান্ড এ পৃষ্ঠপোষকতা করার জন্য এসিআই ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান জনাব এম. আনিস উদ দৌলাকে তিনি ধন্যবাদ জানান। তিনি আশা প্রকাশ করেন, এই পুরস্কার এর মাধ্যমে আগামী প্রজন্মের সংগীত শিল্পীরা অণুপ্রাণিত হবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা অনুষদে ডিন অধ্যাপক ড. আবু মোঃ দেলোয়ার হোসেন তার বক্তব্য রাখেন। ফিরোজা বেগম মেমোরিয়াল ট্রাস্ট ফান্ড এর চেয়ারম্যান ও বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মোঃ কামাল উদ্দীন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।

শিল্পী ফিরোজা বেগমের সহোদর ও এসিআই ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান জনাব এম. আনিস উদ দৌলা তার বক্তব্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এই উদ্দ্যোগের ভ’য়সী প্রশংসা করেন। তিনি অতীত রোমন্থন করে সংগীতের প্রতি শিল্পী ফিরোজা বেগমের নিষ্ঠা, ত্যাগ এবং চর্চা’র কিছু স্মৃতি তুলে ধরেন।

অনুষ্ঠানে শিক্ষক, ছাত্র, শিল্প-সাহিত্য অঙ্গনের বিশিষ্টজন, কবি, লেখক, বিভিন্ন সঙ্গীত শিল্পীগণ, গণ-মাধ্যম ব্যক্তিত্ব উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here