‘আমি অন্য কোনো মানুষ’

0
75

টালিউডের জনপ্রিয় নায়িকা মিমি চক্রবর্তী। গ্লামার ও অভিনয় দক্ষতা দিয়ে জয় করে নিয়েছেন দর্শক ও ভক্তদের হৃদয়। ভারতের পশ্চিম বঙ্গের জলপাইগুড়িতে জন্মগ্রহণ করেন এ তারকা। তার শৈশবের অনেকটা সময় কেটেছে অরুনাচল প্রদেশের দেওমালিতে। পরবর্তী সময়ে আবারো পরিবারের সঙ্গে জলপাইগুড়িতে ফিরে আসেন মিমি। স্কুল জীবন এখানে থেকেই শেষ করেন। তাই জলপাইগুড়িতেও শৈশবের বড় একটি অংশ কেটেছে এই নায়িকার।

সময়ের সঙ্গে মানুষের জীবনে পরিবর্তন আসে। সেই পরিবর্তনের পথ ধরেই এখনো হেঁটে চলেছেন মিমি। শৈশব-কৈশোরে হইহুল্লোড় করে কাটানো মধুর স্মৃতি এখনো নস্টালজিয়া করে তুলে নায়িকাকে।

সম্প্রতি এসব বিষয় নিয়ে ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যমে কথা বলেছেন মিমি। স্কুল জীবনে দুষ্টুমি করতেন না একদম শান্তশিষ্ট ছিলেন? এমন প্রশ্নের জবাবে মিমি বলেন, ‘আমি প্রচণ্ড দুষ্টু ছিলাম। অন্য ক্লাসে গিয়ে অন্যের টিফিন খেয়ে নিতাম বা একজনের বই নিয়ে অন্যজনের ব্যাগে ঢুকিয়ে রাখতাম। তবে শিক্ষকদের কাছে কোনোদিন ধরা পড়িনি। কারণ পড়াশোনার বাইরে আর যা কিছু স্কুলে হতো (কো-কারিকুলাম), সব কিছুতেই আমি থাকতাম। গেমস লিডার ছিলাম, কারণ খেলাধুলা ভালোবাসতাম। হাইজাম্প, লংজাম্প, ১০০ মিটার দৌড়, সব কিছুতেই নাম দিতাম। একটা সময় তো ক্লাস লিডারও ছিলাম। তবে দুষ্টুমিগুলোও মাঝখানে গিয়ে করে আসতাম।’

এখন তো তারকা হয়ে গেছেন। তারকা হওয়ার পর পাড়ার মানুষদের আচরণ কি বদলে গিয়েছে? জবাবে মিমি বলেন, ‘পাড়ার লোকেরা এখন বোধহয় মনে করেন, আমি অন্য কোনো মানুষ। সত্যি বলতে কী, এ আচরণ আমার খারাপই লাগে। কেন এটা মনে করেন, আমি তা বলতে পারব না। হয়তো পাড়ার লোকেরা ভাবেন, আমি অন্য জগতের মানুষ। আমি আর তাদের দুনিয়ার অংশ নই। ঠিক জানি না…।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here