আজ মাছরাঙায় তৌকীরের ”সাহস”

আজ মহান স্বাধীনতা দিবসে বেসরকারি টিভি মাছরাঙায় রাত ৯ টায় প্রচারিত হবে ফেদারম্যান মিডিয়া প্রযোজিত স্বাধীনতা দিবসের বিশেষ নাটক ”সাহস”। তরুণ পরিচালক ওয়াহিদ পলাশ পরিচালিত এই নাটকটির কাহিনি, চিত্রনাট্য ও সংলাপ লিখেছেন গুঞ্জন রহমান। রাজশাহীর বীর মুক্তিযোদ্ধা বরজাহানের মুখে শোনা সত্য ঘটনা অবলম্বনে রচিত ও নির্মিত হয়েছে ”সাহস” নাটকটি। আর নাটকটির মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন গুণী অভিনেতা তৌকীর আহমেদ।

নাটকটির গল্পে দেখা যাবে, ১৯৭১ সালে জাহিদ (তৌকীর আহমেদ) যুদ্ধে যেতে পারেনি। তখন রাজশাহী মেডিকেল কলেজের ইন্টার্নির ছাত্র তিনি। তার সহপাঠীদের অনেকেই সীমান্ত পেরিয়ে পশ্চিমবঙ্গে চলে যায় যুদ্ধের ট্রেনিং নিতে। জাহিদ থেকে যায়। একদিন সে হোস্টেল থেকে বাহিরে আসে। সেখানে দোকানদার মকবুলকে (নরেশ ভূঁইয়া) পায়।

তার সাথে জাহিদের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা হতে থাকে। কোনোদিন সিগারেট না খেলেও এই সময় জাহিদ মকবুলের কাছে সিগারেট চায় এবং সিগারেট খাওয়া শুরু করে। জনশূন্য ক্যাম্পাসে এক রাতে ক্যান্টিন বয় শাহাব আসে। আর কাউকে না পেয়ে জাহিদকে মিলিটারি ক্যাম্পে নিয়ে যেতে চায়।

মেইন হোস্টেলের সামনে এসে দাঁড়ায় আর্মি জীপ। কিছু বুঝে ওঠার আগেই জাহিদকে তুলে নেয়া হয় জীপে। আর বলা হয় জাহিদকে তাদের দরকার। তাদের বাহিনীর যে ডাক্তার ছিলেন, তিনি ফিরে গেছেন, রিপ্লেসমেন্ট এখনও এসে পৌঁছায়নি। আপতকালীন সময়ে জাহিদকে তাই পালন করতে হবে আহতদের চিকিৎসার দায়িত্ব। হঠাৎ এক অতলস্পর্শী সাহসের বর্ম যেন চেপে বসে জাহিদের বুকে। তিনি নিচু গলায়, অথচ দৃঢ় ও স্পষ্ট স্বরে পাক বাহিনীর অফিসার (শাহাদাৎ হোসেন) এর এই প্রস্তাবে জবাব দেয় – ”না”। এরপর জাহিদের উপর শুরু হয় নির্যাতন। শেষ পর্যন্ত পাক মিলিটারির বুলেটের আঘাতে শহীদ হন রাজশাহী মেডিকেল কলেজের ইন্টার্নির ছাত্র জাহিদ।

নাটকটিতে তৌকীর আহমেদ ছাড়াও অভিনয় করেছেন নরেশ ভূঁইয়া, শাহাদাৎ হোসেন, শশাঙ্ক সাহা, চারু সাইফুল, গুঞ্জন রহমানসহ অনেকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here