প্রফেশন ও ফ্যাশন: ফটোগ্রাফি

0_Tue14012014073640_as.jpg

ইদানীং সবার মধ্যে ফটোগ্রাফির শখটা অনেক বেশি জেঁকে বসেছে। কেউ আবার নিয়মিত ফটোগ্রাফি না করলেও শখের বসে একটা ভাল ক্যামেরা নিজের কাছে রাখতে চান। শখের বসে কেনা ক্যামেরা নিয়ে অনেকেই ফটোগ্রাফিকে পেশা হিসেবে নেয়ার স্বপ্ন দেখতে শুরু করেন। ফেসবুকের নিউজফিড চেক করলেই বোঝা যায় আমাদের দেশেও উঠতি ফটোগ্রাফারের সংখ্যা নেহায়েত কম নয়। তাছাড়া ওয়েডিং ফটোগ্রাফি এখন অনেক বেশি লাভজনক। নিয়মিত এক্সিবিশন আর প্রতিযোগিতাও হচ্ছে আজকাল।

ক্যামেরা কেনার ক্ষেত্রে মুলত কিছু বিষয় লক্ষ্য রাখতে হবে যেমন ক্যামেরাটি কত মেগাপিক্সেল, কেনার সময় কোন লেন্সটি সাথে আছে এবং অন্যান্য লেন্সের দামগুলো কেমন হতে পারে, ইমেজ সেন্সর কত বড়, আইএসও (ISO) রেঞ্জ কত, ক্যামেরা পারচালনা স্পিড কেমন, ইউজার ইন্টারফেস এবং পেছনের (LCD) ডিসপ্লেটি কেমন, মেমরী কার্ড কোনটি লাগানো যায়, হালকা না ভারী, ব্যাটারীর লাইফ, শাটার স্পিড, কম আলোতে ছবি কেমন ওঠে, ভিডিও করা যায় কিনা ইত্যাদি।

Canon 1100D
দেশের বাজারে canon 1100D ক্যামেরাটি সবচেয়ে সস্তা কিন্তু কাজের দিক দিয়ে ক্যামেরাটির ফিচার বেশ ভাল। এতে আছে Wide 9 Point Auto Focus সিস্টেম, যার ISO রেঞ্জ 100 – 6400 আর HD ভিডিও ফিচারটি যুক্ত থাকায় সবচেয়ে জনপ্রিয় করে তুলেছে এই ক্যামেরাটিকে। ১২ মেগা পিক্সেলের এই ক্যামেরায় ২.৭ ইঞ্চির এলসিডি ডিস্লে যুক্ত। এর বর্তমান বাজার মূল্য ২৯,০০০ টাকা।

Nikon 3200
বাংলাদেশে এমেচার ফটোগ্রাফারদের মধ্যে Nikon D3100 এবংD3200 এই ক্যামেরা দুটি খুবই জনপ্রিয় আর সবচেয়ে বেশি সহজলভ্য। ১৮-৫৫ লেন্স কিটসহ ৩২,০০০ এবং ৩৫,০০০ টাকার মধ্যে পাওয়া যাবে এই ক্যামেরা। ফিচারও যথেষ্ট ভাল। ১৪.৮ মেগা পিস্কেলের এই ক্যামেরাটি নিজে থেকেই ইমেজ ক্রপ করে ফেলে ছবির কম্পোজিশন আরও ভাল করে তোলে। যারা কোনদিন ক্যামেরা ব্যবহার করেনি তাদের জন্য এই ক্যামেরায় আছে Guide Mode বা easy mode।

Sony Alpha a37
খুব ভাল কম্প্রেশনের জন্য আর ছবির ভাল কালারের জন্য সনির DSLR গুলো বেশ ভাল হয়। ১৬.১ মেগা পিক্সেলের এই ক্যামেরাটিতে আছে 15 Point Auto Focus আর অন্যান্য DSLR এ যা থাকে তার সবকিছু। সনির ইউজার ইন্টারফেস অনেক ভাল বিশেষ করে যারা নতুন করে ফটোগ্রাফি শিখতে চান। কিন্তু আমাদের দেশে সনির ক্যামেরাগুলো খুব একটা সহজলভ্য নয়। বিশেষ করে, ক্যামেরার বডি পাওয়া গেলেও লেন্স পাওয়া অনেক বেশি দুস্কর। তাই প্রায় সময় কিট লেন্স হিসেবে যেটা পাওয়া যায় তাই হয় একমাত্র ভরসা। ২.৬ ইঞ্চির ক্যামেরাটির পাওয়া যাবে ৩২,৫০০ – ৪৭,০০০ টাকার মধ্যে।

Facebooktwittergoogle_pluspinterestlinkedin