দুই কারণে অপুকে শাকিবের ডিভোর্স লেটার

shakibff

”সন্তানকে কাজের লোকের কাছে রেখে ”বয়ফ্রেন্ড”কে নিয়ে ভারত বেড়াতে যাওয়া এবং স্বামীর কোনো নির্দেশ না মেনে চলা”- এই দুই কারণ দেখিয়ে স্ত্রী চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাসকে ডিভোর্স লেটার পাঠিয়েছেন জনপ্রিয় চিত্রনায়ক শাকিব খান। শাকিব খানের আইনজীবী সিরাজুল ইসলাম সূত্রে জানা গেছে এই তথ্য। আইনজীবী সূত্রে আরোও জানা গেছে যে,২৮ নভেম্বর আইনজীবীর মাধ্যমে অপু বিশ্বাসের বাসার ঠিকানায় ডিভোর্সের লিগ্যাল নোটিশ পাঠান শাকিব খান। অপু বিশ্বাসের ঢাকার নিকেতনের বাসার ঠিকানা ছাড়াও ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়রের কার্যালয় এবং অপুর বগুড়ার বাড়ীর ঠিকানায়ও এই নোটিশ পাঠানো হয়েছে। আর এটি কার্যকর হবে নোটিশ পাঠানোর তারিখ থেকে তিন মাস পর। এছাড়া আইন অনুযায়ী বিয়ের দেনমোহর বাবদ সাত লাখ টাকা অপুকে পরিশোধ করবেন শাকিব খান। পাশাপাশি একমাত্র সন্তান আব্রাম খান জয়ের ভরণ-পোষণও করবেন তিনি। তবে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এখনও ডিভোর্স লেটার রিসিভ করেননি অপু। তাছাড়া তিনি সকাল থেকেই রয়েছেন বাসার বাইরে। তবে এটাও নিশ্চিত হওয়া গেছে যে,এমনটা যে ঘটতে পারে সে সম্পর্কে আগে থেকেই আঁচ করছিলেন অপু বিশ্বাস। আর সে ধারণা থেকে তিনি নিজেও তার ঘনিষ্ঠজন এবং পরিবারের সাথে কিছু বিষয়ে আলাপ আলোচনা করে রেখেছেন। এখন দেখার বিষয় শাকিবের এই ডিভোর্স লেটার পাঠানোর পর অপু বিশ্বাস কি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। উল্লেখ্য,এ বছর ১০ এপ্রিল একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের লাইভ অনুষ্ঠানে হাজির হন অপু বিশ্বাস। সেই অনুষ্ঠানে চিত্রনায়ক শাকিব খানের সঙ্গে তার গোপন বিয়ের কথা প্রকাশ করেন তিনি। এ সময় ২০০৮ সালে ১৮ এপ্রিল শাকিবের সঙ্গে অপুর বিয়ে হয়েছে বলে তিনি জানান। ফরিদপুরের ভাঙা থেকে কাজী এনে তাদের বিয়ে হয়। বিয়ের সময় তার নাম অপু ইসলাম খান রাখা হয়। ২০১৭ সালের ২৭ এপ্রিল তাদের ঘর আলো করে আসে পুত্র সন্তান আব্রাম খান জয়।

Facebooktwittergoogle_pluspinterestlinkedin